মাওবাদী দমনে পাঠানো ৫৯জন কোবরা কমান্ডো পালিয়ে গেছে

ভারত অধিকৃত কাশ্মির থেকে প্রশিক্ষণ শেষে বিহারে কর্মস্থলে যাওয়ার পথে ৫৯ জন কোবরা কমান্ডো পালিয়ে গেছেন।

ভারতের আধাসামরিক বাহিনী সিআরপিএফ-এর নকশাল প্রতিরোধ স্কোয়াড কোবরা কমান্ডো। সপ্তাহ পাঁচেকের প্রশিক্ষণ শেষে কাশ্মির থেকে বিহারের গয়ায় কর্মস্থলে আসছিলেন তারা। কিন্তু ফেরার পথেই পালিয়ে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নেন।

শিয়ালদহ-জম্মু এক্সপ্রেস ট্রেনে করে কমান্ডোরা বিহারে আসছিলেন। কিন্তু সোমবার রাতে ট্রেনটি মুঘলসরাই স্টেশনে ঢোকার পর, ওই ৫৯ জন জওয়ান পালিয়ে যান। ট্রেন থেকে নামার পর আর কোনও খোঁজ মেলেনি ওই জওয়ানদের ওই দলটির।

জানা গেছে, গয়ায় পৌঁছনোর পর, মাওবাদী অধ্যুষিত বিভিন্ন এলাকায় মোতায়েন করা হতো ওই ৫৯ জনকে।

এক সিআরপিএফ কর্মকর্তা জানান, গত রাতে পলাতকরা কেউই কিছু জানতে দেননি। দিল্লির সদর দফতর থেকে এই ঘটনা তদন্তের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

২০১১ সালে তাদের আধাসামরিক বাহিনীতে নিয়োগ দেওয়া হয়েছিল। পালানোর ঘটনাটিকে ‘অননুমোদিত অনুপস্থিতি’ বলে উল্লেখ করে এক বিবৃতিতে সিআরপিএফ জানিয়েছে, এ বিষয়ে একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। কমান্ডোরা বিনা অনুমতিতে বাড়ি চলে গেছেন। ওই কমান্ডোদের বেশিরভাগের বাড়িই বিহার ও উত্তর প্রদেশে।

সিআরপিএফ-এর এক জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তা জানান, ‘সোমবার ওই দলটির গয়ায় ২০৫-কোবরা ইউনিটের হেড কোয়ার্টারে যোগ দেওয়ার কথা ছিল। নকশালদের প্রতিরোধ করার জন্য দলটিকে সেখানে নিয়োজিত করা হয়। যে কয়েক জন প্রশিক্ষক ও হাবিলদারের সঙ্গে তাদের ভালো যোগাযোগ ছিল, এ দিন তাঁদের কয়েক জনও কাজে আসেননি। যোগাযোগ করা হলে তারা জানান, মঙ্গলবারের মধ্যে তারা কাজে যোগ দেবেন।

উল্লেখ্য যে, বেশ কিছুদিন ধরেই কোবরা কমান্ডোরা নকশাল অধ্যুষিত এলাকায় কাজ করার অনাগ্রহের কথা জানিয়ে আসছিলেন। এর কারণ হিসেবে হতাশা, মৃত্যুভয় উল্লেখযোগ্য।

Lal Shongbad

সম্পাদক – লাল সংবাদ/Red News